একজন সফল এথলেট হিরো গোপালগঞ্জের মুন্নার গল্প

0
554
একজন সফল এথলেট হিরো গোপালগঞ্জের মুন্নার গল্প
গোপালগঞ্জ জেলার তাম্মাত বিল খায়ের (মুন্না)।

শব্দপাতা.কম ডেস্ক : বাংলাদেশের দক্ষিণের সর্বশেষ ভূখণ্ড কক্সবাজার জেলার টেকনাফের শাহপরী দ্বীপ হতে দীর্ঘ ২৪ দিন পায়ে হেটে প্রায় ১০০০ কিলোমিটারপথ পাড়ি দিয়ে দেশের উত্তরের সর্বশেষ ভূখণ্ড পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়া বাংলাবান্ধা জিরো পয়েন্টে পৌছেঁছে গোপালগঞ্জ জেলার তাম্মাত বিল খায়ের (মুন্না)।

আজ মুন্না তার ব্যক্তিগত ফেইজবুক আইডিতে লেখেছে…
এর আগে একা পায়ে হেটে টেকনাফ থেকে তেতুলিয়া এর আগে আরিফ নামের এক ভাই ৪১দিনে শেষ করেন। প্রথম কিছুদিন পায়ের নিচে পানি জমা ছাড়া এ সফরে আর কোনো রকম শারীরিক সমস্যায় পড়ে নাই তাম্মাত।

মায়ের মুখে যুদ্ধের সময় নানার (মোঃ খোলিলুর রহমান খান) পায়ে হেটে ঢাকা থেকে গোপালগঞ্জের গল্প ছিল তাম্মাতের অনুপ্রেরণা। তাম্মাতের উদ্দেশ্য ছিল এই গল্প তরুন প্রজন্মকে স্বরন করিয়ে দিয়ে হাটার প্রতি উদ্বুদ্ধ করা। সবার প্রতিদিন অন্তত ২কিমি হাটা উচিৎ।

শারীরিকভাবে এই সফরে তাম্মাত একা থাকলেও মানসিকভাবে এই সফরে হাজারো মানুষ তাকে বিভিন্ন সময় বিভিন্নভাবে সহযোগিতা করেছে।এই সফরে তাকে এক গ্লাস পানি অন্তত যারা খাইয়েছেন এমন মানুষগুলোর প্রতি কৃতজ্ঞতা স্বীকার করেছে তাম্মাত। সবার সহযোগিতায় তাম্মাতের সফর সুন্দরভাবে শেষ হলো।

উক্ত সফরে সহযোগিতার জন্য দেশের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের কাছে গিয়েছিল তাম্মাত। কিন্তু সহযোগিতা না পাওয়ায় সে নিজের টিউশুনির টাকা, পরিবারের সহযোগিতা নিয়েই এই সফরে বের হয়েছিল। এর আগে ২০১৭ সালে সে দেশের ৬৪ জেলা সাইকেলে মাত্র ২৫ দিনে ভ্রমন করেছিলাম। দেশের সুন্দর্য খুব কাছ থেকে দেখেছে তাম্মাত। বাংলার রাস্তা, পথের মানুষ, তাদের জীবনধারা দেখতে পাওয়া তার জন্য ভাগ্যের বিষয় ছিল জানায় তাম্মাত।

এই সফরে সে প্রতিদিন প্রায় গড়ে ৪২কিমি পথ অতিক্রম করেছে।

বিস্তারিত

১। ১ম দিন (শাহপরী দ্বীপ টু শামলাপুর)
দূরত্ব : ৪৪.৪ কিমি
সময় : ৯ ঘন্টা ২০ মিনিট

২। ২য় দিন (শামলাপুর টু ইনানী)
দূরত্ব :২২.৩ কিমি
সময় : ৬ ঘন্টা ৭ মিনিট

৩। ৩য় দিন (ইনানী টু কক্সবাজার)
দূরত্ব : ২২.৬ কিমি
সময় : ৫ ঘন্টা ৫৯ মিনিট

৪। ৪র্থ দিন (কক্সবাজার টু ডুলাহাজারা)
দূরত্ব : ৪৪.৮ কিমি
সময় : ৯ ঘন্টা ৩ মিনিট

৫। ৫ম দিন (ডুলাহাজারা টু বাঁশখালী)
দূরত্ব : ৪৯.৫ কিমি
সময় : ১২ ঘন্টা ১ মিনিট

৬। ৬ষ্ঠ দিন (বাঁশখালী টু চট্রগ্রাম)
দূরত্ব : ৪২.৫ কিমি
সময় : ৯ ঘন্টা ১৮ মিনিট

৭। ৭ম দিন(সম্পূর্ন বিশ্রাম)

৮। ৮ম দিন (চট্রগ্রাম টু বড়তাকিয়া)
দূরত্ব :৫৩.৫ কিমি
সময় : ১০ ঘন্টা ২৬ মিনিট

৯। ৯ম দিন (বড়তাকিয়া টু ফেনী)
দূরত্ব : ৪০.১ কিমি
সময় : ৮ ঘন্টা ১৯ মিনিট

১০। ১০ম দিন (ফেনী টু কুমিল্লা)
দূরত্ব : ৫৯.২ কিমি
সময় : ১১ ঘন্টা ৫২ মিনিট

১১। ১১তম দিন (কুমিল্লা টু দাউদকান্দি)
দূরত্ব : ৪৯.৮ কিমি
সময় : ১০ ঘন্টা ১৯ মিনিট

১২। ১২তম দিন (দাউদকান্দি টু ঢাকা)
দূরত্ব : ৫৬ কিমি
সময় : ১১ ঘন্টা ৩৭ মিনিট

১৩। ১৩তম দিন (ঢাকা টু জিরানি)
দূরত্ব : ৪৩.২ কিমি
সময় : ৮ঘন্টা ৪৪ মিনিট

১৪। ১৪তম দিন (জিরানি টু মির্জাপুর)
দূরত্ব : ২৬.৩ কিমি
সময় : ৫ ঘন্টা ৪৪ মিনিট

১৫। ১৫তম দিন (মির্জাপুর টু এলেঙ্গা)
দূরত্ব : ৩৬.৩ কিমি
সময় : ৭ ঘন্টা ২৯ মিনিট

১৬। ১৬তম দিন (এলেঙ্গা টু কুমাজপুর)
দূরত্ব : ৪১.২ কিমি
সময় : ৮ ঘন্টা ৬ মিনিট

১৭। ১৭তম দিন (কুমাজপুর টু বগুড়া)
দূরত্ব : ৫৫ কিমি
সময় : ১০ ঘন্টা

১৮। ১৮তম দিন (বগুড়া টু জয়পুরহাট)
দূরত্ব : ৫২.২ কিমি
সময় : ১০ ঘন্টা ১০ মিনিট

১৯। ১৯তম দিন (জয়পুরহাট টু ফুলবাড়ি)
দূরত্ব : ৫০.৭ কিমি
সময় : ৯ ঘন্টা ৫৮ মিনিট

২০। ২০তম দিন (ফুলবাড়ি টু হাবিপ্রবি)
দূরত্ব : ৪৯.৭ কিমি
সময় : ১০ ঘন্টা ৪ মিনিট

২১। ২১তম দিন (হাবিপ্রবি টু ঠাকুরগাঁও)
দূরত্ব : ৫৩.৯ কিমি
সময় : ১০ ঘন্টা ৩৩ মিনিট

২২। ২২তম দিন (ঠাকুরগাঁও টু পঞ্চগড়)
দূরত্ব : ৪১.২ কিমি
সময় : ৮ঘন্টা ১২ মিনিট

২৩। ২৩তম দিন (পঞ্চগড় টু তেতুলিয়া)
দূরত্ব : ৪০.২ কিমি
সময় : ৮ ঘন্টা ২০ মিনিট

২৪। ২৪তম দিন (তেতুলিয়া টু বাংলাবান্ধা)
দুরুত্বঃ
সময়ঃ

বিঃ দ্রঃ- টেকনাফ থেকে তেতুলিয়া হাটার পথ ১০০০ কিমি হয় না। তবুও আমি প্রতিদিন গন্তব্যে পৌছানোর পর থাকার যায়গা পর্যন্ত হেটে গিয়েছে।যেনো পুরো সফরে ১০০০ কিমি হাটা হয়। ইচ্ছানুযায়ী এই সফরে ১০০০ কিমি পথ হাটা হয়েছে। দুরুত্ব মাপার ক্ষেত্রে আমি স্ট্রাভা নামের একটি এ্যাপ ব্যবহার করেছ।

আপনার মন্তব্য লিখুন............