নারায়ণগঞ্জের ফ্রিল্যান্সারদের জন্য ডোমেইন, হোস্টিং ও ওয়েবসাইট বিষয়ক শিক্ষা – দি এন হোস্ট

0
449
নারায়ণগঞ্জের ফ্রিল্যান্সারদের জন্য ডোমেইন, হোস্টিং ও ওয়েবসাইট বিষয়ক শিক্ষা - দি এন হোস্ট

বৃহত্তর নারায়ণগঞ্জে ফ্রিল্যান্সিং পেশার সাথে জড়িয়ে আছে অনেকই। আর এখন ফ্রিল্যান্সিং পেশাকেই তারা আয় উপার্জনের প্রধান মাধ্যম হিসেবে বেছে নিয়েছেন। এই প্রবন্ধটি শুধু মাত্র ফ্রিল্যান্সার নয় বরং সকলের পড়া এবং জানা উচিত। ফ্রিল্যান্সারদের একটা বড় অংশ এই ডোমেইন এবং হোস্টিং এর সাথে জড়িত। শুধু ডোমেইন হোস্টিং বিক্রি করেই আজকে প্রতিষ্ঠিত দি এন হোস্ট এর মত অনেক প্রতিষ্ঠান। যেহেতু আমরা প্রযুক্তির স্বর্ণ শিখরে আরোহণ করছি, সেহেতু আমাদের সবার উচিত এই ডোমেইন হোস্টিং বিষয়টা নিজে ভালোভাবে জানা এবং আশে পাশের মানুষকে এই বিষয়ে সঠিক জ্ঞান দেয়া। তাহলে আলাচনা শুরু করা যাক ডোমেইন হোস্টিং এবং ওয়েব সাইট নিয়ে-

ডোমেইন কি?

১৫ মার্চ ১৯৮৫ সালে প্রথম বাণিজ্যিক ভাবে ডট কম ডোমেইন নাম ব্যবহার শুরু হয়। সহজ ভাষায় বলতে গেলে ডোমেইন হচ্ছে একটা ওয়েবসাইটের নাম। যেমন: www.shobdopata.com, facebook.com, google.com, thenhost.com ইত্যাদি। এই নাম গুলো মূলত একটি আইপি বা সংখ্যা। যেমন: facebook.com এর আইপি 31.13.90.36 এবং google.com এর আইপি 172.217.18.164। যেহেতু আইপি বা সংখ্যা মানুষের সহযে মনে থাকবে না। সেই জন্য এই আইপি এর পরিবর্তে ডোমেইন নেম ব্যবহার করা হয়। প্রথম বানিজ্যিক ডোমেইন নাম symbolics.com এবং উইকিপিডিয়ার তথ্য অনুসারে ২০১৭ সাল পর্যন্ত ৩৩০.৬ মিলিয়ন ডোমেইন নিবন্ধিত হয়েছে।

ডট বাংলা ও ডট বিডি ডোমেইন কি?

.bd ডোমেইন এবং ডট বাংলা ডোমেইন হচ্ছে বাংলাদেশের কান্ট্রি কোড টপ-লেভেল ডোমেইন (সিসিটিএলডি) ccTLD। বাংলাদেশ ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রণালয় এই ডোমেইন পরিচালনা করে এবং বাংলাদেশ টেলিকমিউনিকেশন্স কোম্পানী লিমিটেড (বিটিসিএল) .বাংলা ও .bd ডোমেইন বিক্রি করে থাকে। ডোমেইন নেম খুঁজতে bdia.btcl.com.bd এই সাইটে ভিজিট করতে হবে। আর মূল্য জানার জন্য ভিজিট করতে হবে www.btcl.com.bd এই সাইটে।
কয়েকটি ডট বাংলা ও ডট বিডি ডোমেইন নিম্নে দেয়া হলো:

পরিচয়.বাংলা
btcl.com.bd
উত্তরাধিকার.বাংলা
• বিটিসিএল.বাংলা
• du.ac.bd

ডোমেইন গঠন কিভাবে হয়!

ব্রাউজারে আমরা যেই অংশটা দেখি এটাকে ইউ আর এল (URL) বলে। ইউআরএল : http:// www.shobdopata.com। এখানে www দিয়ে world wide web বুঝানো হয়। ডোমেইন নেমের দুইটি অংশ থাকে। একটিতে নাম, আরেকটি তে এক্সটেনশন। যেমন shobdopata.com এখানে shobdopata হল ডোমেইন নেম এবং .com হল ডোমেইন এক্সটেনশন। ওয়েবসাইটের ধরণ অনুযায়ী এক্সটেনশন সিলেক্ট করা হয়। নিচে কিছু এক্সটেনশনের ধরন ও দাম জেনে নিই।

• .com পৃথিবীতে সবচেয়ে বেশি জনপ্রিয় এক্সটেনশন। (মূল্য: ৮০০-১০০০ টাকা)
• .net এক বা একাধিক নেটওয়ার্কের জন্য ব্যবহৃত। (মূল্য: ৯০০-১২০০ টাকা)
• .org কোন অলাভজনক/ ধর্মীয়/ সংগঠন এর ওয়েবসাইট এর জন্য ব্যবহৃত হয়। (মূল্য: ৯০০-১২০০ টাকা)
• .info ব্যক্তিগত অথবা তথ্যভিক্তিক ওয়েবসাইটের জন্য ব্যবহৃত। (মূল্য: ৮০০-১০০০ টাকা)
• .me সাধারণত ব্যক্তিগত পোর্টফলিও ওয়েবসাইটের জন্য ব্যবহার করা হয়। (মূল্য: ৮০০-১০০০ টাকা)
• .edu.bd স্কুল, কলেজ, মাদ্রাসা ইত্যাদি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের জন্য এই ডোমেইন। (বিটিসিএল কর্তৃক নির্ধারিত)
• .ac.bd বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য ব্যবহৃত হয়। (বিটিসিএল কর্তৃক নির্ধারিত)
• .gov.bd সরকারি প্রতিষ্ঠানের জন্য। (বিটিসিএল কর্তৃক নির্ধারিত)
• .mil মিলিটারি ফোর্স বা সামরিক বাহিনী ব্যবহার করে। (বিটিসিএল কর্তৃক নির্ধারিত)
• .tv.bd টেলিভিশন চ্যানেল এর জন্য। (বিটিসিএল কর্তৃক নির্ধারিত)

বিভিন্ন ডোমেইন এর ধরন ও প্রকৃতি:

• TLD = Top Level Domain: যেমনঃ .com .org .net .info ইত্যাদি। এগুলো হচ্ছে টপ লেভেল ডোমেইন বা প্রথম স্তরের ডোমেইন নেম এক্সটেনশন।
• gTLD = Generic Top Level Domain: জেনেরিক শীর্ষ-স্তরের ডোমেইন গুলোর মধ্যে যেগুলো কোন দেশের সাথে সংশ্লিষ্ট না তাদেরকে gTLD বলে। .com, .org, .net, .info ইত্যাদি কিছু সংখ্যক Generic Top Level Domain ।
• ccTLD = Country Code Top Level Domain: প্রথম স্তরের ডোমেইন গুলো স্থানিয় নেটওয়ার্ক এ ব্যবহার করা জন্য বিশেষ অনুমতি নিয়ে থাকে। দেশের নিজস্ব যেই ডোমেইনগুলো থাকে সেগুলোই হচ্ছে Country Code Top Level Domain । যেমন .bd এবং .বাংলা (Bangladesh), .us (America), .uk (United Kingdom), .in (India) ইত্যাদি।
• SLD = Sub Level Domain: কোন ডোমেইন এর অধীনস্ত ডোমেইন গুলোকেই Sub Level Domain বলে। একটা Domain এ একাধিক Sub Level Domain থাকতে পারে। যেমন: www.doctors.thenhost.com ও www.client.thenhost.com ইত্যাদি ।
• Free Domain & Hosting: যে ডোমেইন ও হোস্টিং গুলো সাধারনত কিনতে হয়না সেগুলোই ফ্রি ডোমেইন হোস্টিং। ওয়েব টু করার জন্য ফ্রি ডোমেইন এবং হোস্টিং অত্যন্ত জনপ্রিয়। যেমনঃ .blogspot.com .tk, wordpress.com, weebly.com ইত্যাদি।
ডোমেইন কেনার পূর্বে লক্ষণীয় বিষয়-
• সহজ, সুন্দর, ছোট এবং অর্থবহ নাম রাখুন। যাতে সবাই সহজে মনে রাখতে পারে।
• ওয়েব সাইটরে বিষয় বস্তুর সাথে মিল রেখে নাম ঠিক করুন। যেমন: নোয়াখালী নিউজ (www.shobdopata.com) নাম দেখেই বুঝা যায় সংবাদ বিষয়ের উপর ডোমেইন নেম।
• সংক্ষিপ্ত নাম দেখতে সুন্দর, মনে রাখাও সোজা।
• বড় কোন কোম্পানির অনুকরণে নাম দেওয়া থেকে বিরত থাকুন। যেমনঃ googlebd.com, yahooshop.com, thenhostbd.com ইত্যাদি।
• ৪ বর্ণ থেকে ১১ বর্ণের মধ্যে নাম রাখার চেষ্টা করুন।
• আপনার পছন্দের ডোমেইন নেম খালি আছে কিনা চেক করার জন্য thenhost.com ভিজিট করে দেখতে পারেন।

হোস্টিং কোম্পানি সম্পর্কে যা জানবেন

• আপনাকে ডোমেইন কন্ট্রোল প্যানেল (CP) দিচ্ছে কিনা।
• ডোমেইন রেজিস্ট্রশন ফি বর্তমানে এবং পরের বছর থেকে কত করে?
• প্রতিষ্ঠানের সামগ্রিক আবস্থা।
• হোস্টিং এবং ডোমেইন এর পরবর্তি বছরের রিনিউ ফি কত?
• উপরোক্ত বিষয় গুলো আপনার সাধ্যের মধ্যে হলে যে কোন দেশি বিদেশী প্রতিষ্ঠান থেকে ডোমেইন এবং হোস্টিং ক্রয় করতে পারেন।

ফ্রি ডোমেইন অফার

দি এন হোস্ট থেকে SSD হোস্টিং প্যাকেজ কিনলে এর সাথে একটি .COM .NET .ORG .BIZ অথবা .INFO ডোমেইন প্রথম বছরের জন্য ফ্রি পাবেন। এছাড়া দি এন হোস্ট থেকে রিসেলার হোস্টিং কিনে আপনি নিজেই শুরু করতে পারেন আপনার ডোমেইন হোস্টিং ব্যবসা।

হোস্টিং কি?

সহজ কথায় হোস্টিং হচ্ছে আপনার কম্পিউটারের হার্ডডিস্ক এর মত একটা জায়গা। যেখানে ডোমেইনটা রাখা থাকে। এছাড়া ডোমেইন বা ওয়েব সাইটের যাবতীয় তথ্য বা ডাটা মজুদ রাখার স্থান। www.shobdopata.com এর যাবতীয় ছবি, ভিডিও এবং লেখা যেখানে মজুদ আছে সেটাই হচ্ছে হোস্টিং। এর থেকে আরো সহজে বলতে গেলে-
• আপনার একটি বাড়ি আছে।
• বাড়ির জমির পরিমান ১ একর।
• বাড়িটির একটা ঠিকানা আছে।
• ওয়েবসাইটের ক্ষেত্রে বলতে গলে আপনার বাড়িটি আপনার সাইটের কনটেন্ট।
• বাড়ি যে জমিতে আছে সেটাই আপনার ওয়েব সাইটের হোস্টিং।
• বাড়িটির ঠিকানা হল ডোমেইন নেম।

ভোক্তর সুবিধা, দাম, ব্যবহার সহজবোধ্য করার জন্য হোস্টিং কয়েক ভাগে ভাগ করা হয়েছে। নিম্নে তা উল্লেখ করা হলো-

• শেয়ার্ড হোস্টিং (Shared Hosting)
• রিসেলার ওয়েব হোস্টিং (Reseller web Hosting)
• ভার্চুয়াল ডেডিকেটেড সার্ভার (Virtual Dedicated Server)
• ডেডিকেটেড হোস্টিং পরিষেবা (Dedicated Hosting)
• ম্যানেজড হোস্টিং (Managed Hosting)
• কোলন ওয়েব হোস্টিং (Colocation web Hosting)
• ক্লাউড হোস্টিং (Cloud Hosting)
• ক্লাস্টার হোস্টিং (Clustered Hosting)
• গ্রিড হোস্টিং (Grid Hosting)
• হোম সার্ভার (Home server)
• ফাইল হোস্টিং সার্ভার (File Hosting Server)
• ইমেইজ হোস্টিং সার্ভার (Image Hosting Server)
• ভিডিও হোস্টিং সার্ভার (Video Hosting Server)
• ব্লগ হোস্টিং সার্ভার (Blog Hosting Server)
• পেস্ট বিন (Paste bin)
• শপিং কার্ট সফটওয়ার (Shopping cart Software)
• ই-মেইল হোস্টিং সার্ভার (E-mail Hosting Server)

শেয়ার্ড হোস্টিং (Shared Hosting):

ডোমেইন হোস্টিং ব্যবহারকারীর শতকরা ৯৫% লোক শেয়ার্ড হোস্টিং ব্যবহার করছে। আর এই হোস্টিং সবচেয়ে জনপ্রিয় হওয়ার কারন হচ্ছে খরচ কম। দাম ২৫০ টাকা থেকে ১০,০০০ টাকার মধ্যে এক বছরের জন্য। হোস্টিং এর সাইজ অনুপাতে দাম নির্ধারন করা হয়।

হোস্টিং কেনার পূর্বে যা দেখবেন

• বাজেট: 1GB হোস্টিং এর দাম ১০০-২০০০ টাকা পর্যন্ত হয়ে থাকে। ব্যাক্তিগত ওয়েবসাইট, ব্যাক্তিগত ব্লগ, ব্যাক্তিগত পোর্টফোলিও, ছোট ই-কমার্স শপ ইত্যাদি সাইট করার জন্য 1GB হোস্টিং হলেই হবে।
• ডিস্ক স্পেস: আপনার চাহিদা মত ডিস্ক স্পেস কিনুন। অযথা বেশি স্পেস ভাড়া করে টাকা অপচয় করা থেকে বিরত থাকুন। আপনার দরকার ৩জিবি হোস্টিং তাহলে ৩জিবি হোস্টিং কিনুন। হোস্টিং কিনার পূর্বে আপনার ডেভেলপার এর সাথে আলাপ করুন।
• ব্যান্ডউইথ: সাইটের ভিজিটর যত বেশি হবে সেই অনুপাতে ব্যান্ডউইথ আছে কিনা দেখুন। 1GB হোস্টিং এর সাথে মাসিক 30 GB ব্যান্ডউইথ একটা কম ট্রাপিক সাইটের জন্য যথেস্ট।
• আপটাইম/SLA গ্যারান্টি: আপনার হোস্টিং কোম্পানির আপটাইম গ্যারান্টি কেমন তা জেনে নিবেন। ভিজিটর ধরে রাখার জন্য সাইটে আপটাইম বিষয়টি খুবই জরুরি।

ওয়েব সাইট তৈরি

বর্তমান প্রজন্মের একটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ জিনিস ওয়েবসাইট। ব্যক্তিগত প্রয়োজনে কিংবা প্রাতিষ্ঠানিক কাজে ওয়েবসাইটের কোনো বিকল্প নেই। একটি ওয়েবসাইট আপনার প্রতিষ্ঠানকে পরিচিত করাতে পারে সমগ্র বিশ্বের সাথে অন্য যে কোনো উপায়ের চেয়ে দ্রুত ও সহজে। তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তির এই প্রজন্মে ওয়েবসাইটই পারে আপনার প্রতিষ্ঠানের তথ্যাদি সারা বিশ্বের মানুষের কাছে পৌঁছে দিতে। ইন্টারনেটে ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছে অসংখ্য ওয়েবসাইট। এসব সাইটের একেকটি একেক ধরনের উদ্দেশ্যে তৈরি। এগুলোর কোনোটা ব্যক্তিগত, কোনোটা প্রাতিষ্ঠানিক। ইচ্ছা করলে আপনিও আপনার প্রতিষ্ঠানের কিংবা একান্তই আপনার ব্যক্তিগত একটি ওয়েবসাইট তৈরি করতে পারেন।
ফ্রি ওয়েব সাইট খোলার কয়েকটি জনপ্রিয় মাধ্যম হলো: WordPress, Blogger, Weebly, Jimdo, Wapten, Blog ইত্যাদি।

নারায়ণগঞ্জের ফ্রিল্যান্সারদের আয়ের কিছু উৎস

• পেড রিভিউ-এর মাধ্যমে আয়
• নিবন্ধ লিখে আয়
• পিটিসি বা পেড-টু-ক্লিক এ আয়
• ছবি তোলার মাধ্যমে আয়
• গুগল এডসেন্সের মাধ্যমে আয়
• মতামত প্রকাশের জন্যে
• অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং-এর মাধ্যমে আয়
• “ব্যানার” জাতীয় বিজ্ঞাপন বিক্রি করে আয়
• ফ্রিল্যান্সিং করে আয়
• টুইটার বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে আয়

উপসংহার

বিদ্যালয় গুলোতে পাঠ দানের মাধ্যমে ডোমেইন হোস্টিং এবং ওয়েব সাইট সম্পর্কে একটা প্রাথমিক ধারনা দেয়া উচিত। এছাড়া বাংলাদেশের সকল বিদ্যালয়, মহাবিদ্যালয়, মাদ্রাসা ও বিশ্ববিদ্যালয় গুলোর নিজস্ব ওয়েবসাইট রয়েছে। শিক্ষার্থিদের স্ব-স্ব বিদ্যালয়ের ওয়েব সাইট নিয়ে আলোচনা করলেও বিষয়টা অনেক সহজ হয়ে যাবে তাদের কাছে। নতুন প্রজন্ম যত বেশি জানবে দেশ তত এগুবে।

নিউজটি শেয়ার করুন :

আপনার মন্তব্য লিখুন............