পাবনায় হৃদয়হীন স্বামী গরম পানি ঢেলে স্ত্রীর শরীর ঝলসে দিলো

0
128
পাবনায় হৃদয়হীন স্বামী গরম পানি ঢেলে স্ত্রীর শরীর ঝলসে দিলো

পাবনা প্রতিনিধি : পাবনার সাঁথিয়ায় হৃদয়হীন স্বামী কর্তৃক শাপলা খাতুন (২৫) নামে এক গৃহবধুকে শরীরে গরম পানি ঢেলে দিয়ে পুড়িয়ে ঝলসে দিয়েছে।

রবিবার (১৬ সেপ্টেম্বর) সকালে উপজেলার ধোপাদহ ইউনিয়নের হাপানিয়া গ্রামে ঘটনাটি ঘটে। আহত শাপলাকে প্রথমে সাঁথিয়া হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়। পরে তার অবস্থা খারাপ হলে পাবনা জেনারেল হাসপাতালে রেফার্ড করেন কর্তব্যরত ডাক্তার।

হৃদয়হীন স্বামী হাপানিয়া গ্রামের বাছেদ খান ওরফে (মুনান) এর ছেলে শামিম।

অভিযোগ সুত্রে জানা যায়, প্রায় ১০ বছর পূর্বে সাঁথিয়া উপজেলার ধোপাদহ ইউনিয়নের হাপানিয়া গ্রামের বাছেদ খান ওরফে (মুনান) এর ছেলে শামিমের সাথে বিয়ে হয় একই ইউনিয়নের বড় পাইকশা গ্রামের শামসুলের মেয়ে শাপলা খাতুনের। এই দম্পত্যির ঘরে রয়েছে তিনটি সন্তানও। আজ রোববার সকালে শাপলা তার স্বামীর নিকট কিস্তির টাকা চাই। এতেই স্বামী রেগে গিয়ে চুলায় ভাত রান্না করার গরম পানি ঢেলে দেয় শাপলার গায়ে। এ সময় শাপলা চিৎকার করতে থাকলে হৃদয়হীন স্বামী শামীম পালিয়ে যায়। পরে স্থানীয়দের সহযোগীতায় পরিবারের লোকজন শাপলাকে সাঁথিয়া হাসপাতালে নিয়ে আসে। হাসাপাতালে শাপলার অবস্থা গুরুতর দেখে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে পাবনা জেনারেল হাসপাতালে রেফার্ড করেন।

আহত শাপলার মা ময়না থাতুন বলেন, বিয়ের পর থেকেই শাপলার হৃদয়হীন স্বামী শাপলাকে বিভিন্ন সময় নির্যাতন করতো। এমনকি তার শশুর-শাশুরী মিলেও নির্যাতন করতো। শামিম কোন কাজকর্ম করে না। নেশা করা আর জুয়া খেলাই শাসিমের প্রধান কাজ। তিনি হাসাপাতালের মধ্যেই শাপলার শশুরকে বলেন আপনার ৭/৮ বিঘা জমিজমা থাকতেও আমার বাড়ি থেকে বিভিন্ন সময় চাল-ডাল নিয়ে এসে মেয়েকে খাওয়ানো হতো কেন? এতে তিনি কোন সদুত্তর দিতে পারেনি শাপলার শশুর।

এ ব্যাপারে শাপলার শশুর আব্দুল বাছেদ খান মুনান সাংবাদিকদের বলেন, ছেলে যদি এরকম করে কি করবো বলেন। আমি শাপলার চিকিৎসার ব্যবস্থা করছি।

এ বিষয়ে সাঁথিয়া থানা ওসি তদন্ত আব্দুল মজিদ ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান, খবর পেয়ে আমি ও এসআই গাফ্ফারসহ হাসাপাতালে গিয়েছিলাম। মেয়ের বাবাকে অভিযোগ দিতে বলেছি। অভিযোগ পেলেই আমরা আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করবো।

নিউজটি শেয়ার করুন :

আপনার মন্তব্য লিখুন............