ফ্রি কিন্তু ফ্রি না!

ফ্রি কিন্তু ফ্রি না!

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি : ঝিনাইদহ সরকারী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে ডাচবাংলা ব্যাংকের মাধ্যমে ষষ্ঠ শ্রেনীর ছাত্রীদের উপবৃত্তির টাকা দেওয়া হতো। কিন্তু এবার মন্ত্রনালয়ের কোন ঘোষনা ছাড়াই অষ্টম শ্রেনীর উপবৃত্তির দায়িত্ব নিয়ে বসেছে ব্র্যাক ব্যাংকের প্রতিষ্ঠান “বিকাশ”। বালিকা বিদ্যালয়ের ভেতরে ঝুলছে একটি ব্যানার। সেখানে লেখা আছে ফ্রি বিকাশ একাউন্ট খুলতে যা প্রয়োজন। কিন্তু বিকালে বালিকা বিদ্যালয়ের দোতালায় গিয়ে দেখা যায় একাউন্ট করতে ১০ টাকা করে নেওয়া হচ্ছে।

বিষয়টি নিয়ে বিদ্যালয়ের কম্পিউটার অপারেটর স্বপন কুমার জানান, আমি তাদেরকে বলেছি কেন টাকা নেওয়া হচ্ছে। জবাবে বিকাশ কর্মীরা উত্তেজিত হয়ে চলে যাওয়ার হুমকী দেন। তবে বিকাশ কর্মীদের একাউন্ট করার দায়িত্ব নিয়ে মন্ত্রনালয়ের কোন চিঠি বা ডকুমেন্ট নেই ঝিনাইদহ সরকারী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে।

স্কুলের সহকারী প্রধান শিক্ষক আমিনুর রহমান জানান, আগে তো ডাচবাংলা ব্যাংক এই কাজ করতো। এখন দেখছি ব্র্যাক ব্যাংক করছে। তবে তারা কিভাবে করছে কেন করছে এ সম্পর্কে আমাদের কাছে কোন নির্দেশনা আসেনি বলেও তিনি জানান। অভিযোগ সম্পর্কে বিকাশ কর্মীরা কোন সদুত্তর দিতে পারেনি।

তবে ছাত্রীরা জানায়, যাদের নামের বানান ভুল আছে তাদের কাছ থেকে ১০ টাকা করে নেওয়া হচ্ছে।

অভিভাবকরা অভিযোগ করেন, মন্ত্রনালয়ে যাদের লাইন ভাল তারাই হয়তো বেশি কমিশন দিয়ে এই কাজ বাগিয়েছে। তাই সরকারী কোন ডকুমেন্ট ঝিনাইদহ সরকারী বালক উচ্চ বিদ্যালয়ে নেই।

আপনার মন্তব্য লিখুন............