শামীম ওসমানের বার্ষিক আয় ৭ কোটি টাকা, শাহ আলমের ১৪ কোটি

0
51
শামীম ওসমানের বার্ষিক আয় ৭ কোটি টাকা, শাহ আলমের ১৪ কোটি

অনলাইন ডেস্ক : নারায়ণগঞ্জ-৪ (ফতুল্লা-সিদ্ধিরগঞ্জ) আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী শামীম ওসমানের ব্যাংক, ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের কাছে দায়দেনা আয়ের চেয়ে বেশি। অর্থাৎ নারায়ণগঞ্জের প্রভাবশালী এ সাংসদ ঋণগ্রস্ত। একই অবস্থা এ আসনে বিএনপির প্রার্থী শিল্পপতি মোহাম্মদ শাহ আলমেরও।

তবে বার্ষিক আয়ের দিক দিয়ে শামীম ওসমানের চেয়ে শাহ আলম অনেক এগিয়ে। শামীম ওসমানের বার্ষিক আয় ৭ কোটি টাকার ওপরে। আর শাহ আলমের আয় ১৪ কোটি টাকার ওপরে।

আসন্ন একাদশ সংসদ নির্বাচনে এ দুই প্রার্থীর হলফনামা পর্যালোচনা করে এসব তথ্য পাওয়া গেছে।

শামীম ওসমানের বিরুদ্ধে অতীতে ১৭টি মামলা থাকলেও ১০টিতে তিনি খালাস পেয়েছেন। রাষ্ট্র প্রত্যাহার করে নিয়েছে চারটি মামলা। উচ্চ আদালতের নির্দেশে স্থগিত রয়েছে তিনটি।

অন্যদিকে বিএনপি প্রার্থী শাহ আলম তিনটি মামলার আসামি ছিলেন, যার দুটি থেকে তিনি অব্যাহতি পেয়েছেন। একটি মামলা তদন্তাধীন।

শামীম ওসমানের ব্যক্তিগত টয়োটা ল্যান্ডক্রুজার ভি-৮ জিপ থাকলেও বিএনপি প্রার্থী শাহ আলমের নিজ নামে কোনো গাড়ি নেই। শামীম ওসমান শিক্ষাগত যোগ্যতা দেখিয়েছেন বিএ, এলএলবি পাস। শাহ আলম বিকম পাস।

এ দুই প্রার্থীর হলফনামা পর্যালোচনা করে দেখা গেছে, শামীম ওসমান চারটি ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানের সঙ্গে জড়িত। জেডএন করপোরেশন, জেডএন শিপিং লাইনস, শীতল এসি ট্রান্সপোর্ট লিমিটেড এবং মাইশা এন্টারপ্রাইজের মালিক তিনি। শীতল বাস ছাড়া বাকি তিনটি প্রতিষ্ঠান জ্বালানি তেল আমদানি, সরবরাহ ও পণ্য পরিবহন করে থাকে।

অন্যদিকে বিএনপি প্রার্থী শাহ আলম শাহ ফতেহ উল্লাহ টেক্সটাইল মিল ও জালাল আহমেদ স্পিনিং মিলের উপব্যবস্থাপনা পরিচালক। এ দুটি তাদের পারিবারিক প্রতিষ্ঠান।

শামীম ওসমানের বাড়ি ভাড়া, শেয়ার, সঞ্চয়পত্র বা ব্যাংক থেকে সুদ, এমপি হিসেবে বার্ষিক সম্মানী, ব্যাংকে রক্ষিত টাকা, এফডিআর সবকিছু মিলিয়ে আয় বার্ষিক সাত কোটি ৬৪ লাখ টাকার ওপরে। ব্যক্তি, প্রতিষ্ঠান ও একটি ব্যাংকের কাছে তার ঋণ রয়েছে প্রায় ১৩ কোটি ২৪ লাখ টাকা।

শাহ আলমের বার্ষিক আয় ১৪ কোটি ৬০ লাখ টাকা। বিপরীতে তিনটি ব্যাংকে তার ঋণ রয়েছে ৩৩৭ কোটি টাকার ওপরে।

শামীম ওসমান পৈতৃক সূত্রে ১৫ শতাংশ কৃষিজমির মালিক। এ ছাড়া নগরের মাসদাইরে ১০ শতাংশ জমি, সোনারগাঁয়ের বারদিতে ১২৩ শতাংশ জমি এবং পূর্বাচল নিউ টাউন এলাকায় ১০ কাঠা জমি রয়েছে তার। পৈতৃক বাড়ি ছাড়াও জামতলা এলাকায় শামীম ওসমানের ১৬ শতাংশ জমির ওপর দোতলা বাড়ি রয়েছে।

শাহ আলম ৮৭১ দশমিক ৩৪ ডেসিমেল জমির মালিক। পাঁচ কোটি টাকা মূল্যের তার দুটি ফ্ল্যাট রয়েছে। শাহ আলমের স্ত্রীর নামে ছয় কোটি ১৩ লাখ টাকা মূল্যের একটি ফ্ল্যাট রয়েছে।

এ বিষয়ে শামীম ওসমান বলেন, আমার হলফনামায় যে বিবরণ উল্লেখ রয়েছে তার বাইরে বলার মতো কিছু নেই। একই কথা বললেন বিএনপি প্রার্থী শাহ আলম।

আপনার মন্তব্য লিখুন............

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here