শৈলকুপা হাসপাতালে চিকিৎসকের অবহেলায় রোগীর মৃত্যুর অভিযোগ

0
204
শৈলকুপা হাসপাতালে চিকিৎসকের অবহেলায় রোগীর মৃত্যুর অভিযোগ

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি : ঝিনাইদহের শৈলকুপা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে কর্তব্যরত চিকিৎসকের অবহেলায় রোগীর মৃত্যু হয়েছে বলে অভিযোগ করেছে স্বজনরা। নিহত বৃদ্ধ ব্যক্তি উপজেলার কাঁচেরকোল গ্রামের আতিয়ার রহমান (৬৫)। মঙ্গলবার রাত ৮টায় এ ঘটনা ঘটে। নিহতের জামাই মহিউদ্দিনসহ স্বজনদের অভিযোগ, মঙ্গলবার বিকালে শ্বাসকষ্টে আক্রান্ত আতিয়ার রহমানকে শৈলকুপা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। চিকিৎসা চলাকালীন সময়ে সন্ধ্যার পর থেকে তার অতিরিক্ত শ্বাসকষ্ট শুরু হয়।

এসময় স্বজনরা দায়িত্বে থাকা চিকিৎসক সাজ্জাদ রহিমী ও সেবীকা শামীমা এবং শাহনাজ পারভিনকে অবহিত করে। শ্বাসকষ্ট নিয়ন্ত্রনে রোগীর অক্সিজেন দেয়ার প্রয়োজন পড়ে। কিন্তু হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ দীর্ঘ সময় অতিবাহিত হলেও যথাসময় অক্সিজেন দিতে ব্যর্থ হয়। প্রায় আধাঘন্টা অতিমাত্রায় শ্বাসকষ্টে ভূগে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ে মৃত্যু বরণ করেন। এ ঘটনায় ক্ষুব্ধ হয়ে বিক্ষুব্ধ জনতা হাসপাতাল ঘেরাও করে। পরে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনতে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ লোক দেখাতে একটি অক্সিজেন সিলিন্ডার ম্যানেজ করে। বিক্ষুদ্ধ জনতা অক্সিজেন সিলিন্ডার ছুড়ে ফেলে দেয়। সিলিন্ডার ছিদ্র হয়ে বেরিয়ে আসা অক্সিজেনের ধোয়ায় হাসপাতাল ওয়ার্ড অন্ধকার হয়ে গেলে রোগীরা দ্বিক-বিদ্বিক ছোটাছুটি শুরু করে। খবর পেয়ে শৈলকুপা থানা পুলিশ হাসপাতালে উপস্থিত হয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে।

তবে অভিযোগ উঠেছে কোন এক ব্যক্তি প্রভাব খাটিয়ে হাসপাতালের অক্সিজেন সিলিন্ডারটি আগেই নিয়ে যাওয়ায় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ সময়মত আতিয়ার রহমানকে অক্সিজেন দিতে ব্যর্থ হয়। যে কারনে ওই রোগীর মৃত্যু হয়েছে। শৈলকুপা থানার ওসি কাজী আয়ুবুর রহমান জানান, রুগী মৃত্যুর ঘটনা নিয়ে একটু উত্তেজনা তৈরি হয়েছিল। তবে তাৎক্ষনিক পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। পরে স্বজনরা লাশ নিয়ে বাড়ি ফিলে যায়।

শৈলকুপা উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা: খন্দকার বাবর জানান, রোগীর অবস্থা ভর্তির আগে থেকেই আশংকাজনক ছিলো। যা কিনা স্বজনদের অবহিত করা হয়েছিলো। অক্সিজেন ও নেবুলাইজারসহ রোগীর যথাযথ চিকিৎসা দেয়া হয়েছিলো। চিকিৎসকের অবহেলায় রোগীর মৃত্যু হয়নি বলে তিনি দাবী করেন।

নিউজটি শেয়ার করুন :

আপনার মন্তব্য লিখুন............