হরিণাকুন্ডুতে দপ্তরীর ইটের আঘাতে সংবাদিক যখম

হরিণাকুন্ডুতে দপ্তরীর ইটের আঘাতে সংবাদিক যখম

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি : স্কুলে যাওয়া রাস্তা বন্ধ করার প্রতিবাদ করে আক্রান্ত হয়েছেন অন্যদৃষ্টি অনলাইন পত্রিকার হরিণাকুন্ডু প্রতিনিধি নাজমুল হুদা রিপন নামে এক সাংবাদিক। তিনি হরিণাকুন্ডু উপজেলার কুলবাড়িয়া গ্রামের নওশের আলীর ছেলে।

প্রত্যাক্ষদর্শী সুত্রে জানা গেছে, নাজমুল হুদা রিপন বৃহস্পতিবার সকালে কুলবাড়িয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সভাপতি সোনা উল্লাহর সাথে স্কুলে আসা যাওয়ার রাস্তা বন্ধ করা নিয়ে কথা বলছিলেন। এ সময় স্কুলের দপ্তরী দিপু আহম্মেদ ছুটে এসে তর্ক বিতর্কে লিপ্ত হয়। উভয়য়ের মধ্যে তর্ক বিতর্কের এক পর্যায়ে দিপু ইট তুলে সাংবাদিক নাজমুল হুদা রিপনের দিকে ছুড়ে মারে। এতে তার মাথায় লাগে। ইটের আঘাতে তার মাথা ফেটে যায় এবং তিনটি সেলাই দিতে হয়। কুলবাড়িয়া বাজারে উপস্থিত লোকজন রিপনকে উদ্ধার করে পল্লী চিকিৎসক বেলতলা গ্রামের রেজন আহম্মেদের কাছে নিয়ে যান এবং প্রাথমিক চিকিৎসা দেন।

বিষয়টি নিয়ে স্কুলের প্রধান শিক্ষক সালেহা বেগম জানান, স্কুলের পাশের রাস্তাটি খোলা থাকলে গরু ছাগলে গাছগাছালি নষ্ট করে। তিনি বলেন, বিষয়টি যাতে শান্তিপুর্ন সমাধান হয় সে বিষয়ে পরিচালনা কমিটির সভা ডাকা হয়েছে।

স্থানীয় চেয়ারম্যান ফজলুর রহমান বলেন, বিষয়টি আমি শুনেছি। উভয়ের দোষ আছে। তবে যাতে শান্তিপুর্ন সমাধান হয় সেই চেষ্টা করা হচ্ছে। এদিকে

স্থানীয় অভিভাবকরা জানান, দিপু আহম্মেদ স্কুলের দায়িত্ব যথাযথ ভাবে পালন করেন না। রাতে তিনি স্কুলে ডিউটি দেন না। স্থানীয় হওয়ায় গায়ের জোরে ক্ষমতা জাহির করেন। তবে দিপু এ সব অভিযোগ অস্বীকার করেছেন।

আপনার মন্তব্য লিখুন............